আজ ‘সুরসম্রাট’ শচীন দেববর্মণের ১১৪তম জন্মবার্ষিকী

মোট দেখেছে : 112
প্রসারিত করো ছোট করা পরবর্তীতে পড়ুন ছাপা

স্টাফ রিপোর্টার :

আজ উপমহাদেশের প্রখ্যাত সঙ্গীতজ্ঞ, কুমিল্লার কৃতী সন্তান ‘সুরসম্রাট’ শচীন দেববর্মণের ১১৪তম জন্মবার্ষিকী । ১৯০৬ সালের ১ অক্টোবর তৎকালীন ব্রিটিশ ভারতের কুমিল্লায় জন্মগ্রহণ করেন তিনি। তাঁর পৈত্রিক নিবাস কুমিল্লা শহরের চর্থা এলাকায়। সঙ্গীতের এ মহারাজার আসল নাম শচীন দেববর্মণ হলেও কেউ কেউ ‘এসডি বর্মণ’ কিংবা ‘শচীন কর্তা’ নামেও চেনেন তাঁকে।

এদিকে  ‘সুরসম্রাট’ শচীন দেববর্মণের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে আজ (১ অক্টোবর) কুমিল্লায় তাঁর প্রতিকৃতিতে ফুলেল শ্রদ্ধা জানানোর পাশাপাশি আলোচনা সভার আয়োজনা করা হয়েছে। এতে কুমিল্লা জেলা প্রশাসন, শিল্পকলা একাডেমী, কালচারাল কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও সদস্যরা অংশগ্রহণ করে।

এসডি বর্মণের জন্মদিন উপলক্ষ্যে বিগত বছরগুলোতে কুমিল্লায় বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করা হলেও করোনা পরিস্থিতির কারণে এবার সংক্ষিপ্ত আকারেই পালিত হবে  ‘সুরসম্রাট’-এর জন্মবার্ষিকী।

এ প্রসঙ্গে জেলা কালচারাল অফিসার আয়াজ মাবুদ বলেন, শচীন দেববর্মণের ১১৪তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আজ সকাল ১১টায় তাঁর পৈত্রিক নিবাস শহরের চর্থায় তাঁর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অপর্ণ করা হবে। পরে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হবে আলোচনা সভা।

উল্লেখ্য, কুমিল্লায় জন্ম নেওয়া শচীন দেববর্মণ ছিলেন ত্রিপুরার চন্দ্রবংশীয় মাণিক্য রাজপরিবারের সন্তান। তাঁর গাওয়া অথবা সুর করা গানের মধ্যে রয়েছে ‘তুমি এসেছিলে পরশু’, ‘বাঁশি শুনে আর কাজ নাই’, ‘কে যাস রে ভাটি গাঙ’, ‘নিশিথে যাইও ফুলবনে’, ‘শোনো গো দখিন হাওয়া’, ‘রঙিলা রঙিলা’, ‘ঝিলমিল ঝিলমিল’, ‘নিটল পায়ে’, ‘বর্ণে গন্ধে ছন্দে গীতিতে’, ‘তুমি আর নেই সে তুমি’, ‘টাকডুম টাকডুম বাজে’, ‘আঁখি দুটি ঝরা’ ইত্যাদি।

আরো দেখুন

সর্বশেষ ফটো